নতুন মুদ্রানীতি ঘোষণা ২০২৩ । এখন থেকে বাজার ভিত্তিক ঋণের সুদের হার কার্যকর থাকবে

কেন্দ্রীয় ব্যাংক মুদ্রানীতি ঘোষণা করেছে- এখন থেকে ঋণে সুদহারের সর্বোচ্চ সীমা আর থাকছে না। এখন থেকে ঋণের সুদের হার হবে বাজার ভিত্তিক। তবে এজন্য একটি রেফারেন্স রেট থাকবে – নতুন মুদ্রানীতি ঘোষণা ২০২৩ 

ব্যাংক সুদের হার কত থাকবে? – কেন্দ্রীয় ব্যাংক রেফারেন্স রেট নির্ধারণ করে দিবে। নতুন নিয়মে ব্যাংকঋণের সুদহার হবে সর্বোচ্চ ১০ দশমিক ১২ শতাংশ। আর আর্থিক প্রতিষ্ঠানগুলোর ঋণের সুদহার হবে সর্বোচ্চ ১২ দশমিক ১২ শতাংশ। এসএমই ও ভোক্তাঋণের তদারকি খরচের জন্য ব্যাংক ও আর্থিক প্রতিষ্ঠানগুলো আরও ১ শতাংশ বেশি সুদ আরোপ করতে পারবে। এক্ষেত্রে বানিজ্যিক ব্যাংকগুলোতে সুদের হার ১২-১৩% এর মধ্যেই থাকবে আশা করা যাচ্ছে।

ব্যাংক সুদের হার বাড়াতে কি মূল্যস্ফিতি করবে? হ্যাঁ। টাকার ফ্লো বা সরবরাহ কমলে মূল্যস্ফিতি কমে যাবে। বাংলাদেশ ব্যাংক এসব পদক্ষেপ নিয়েছে এমন এক সময়ে যখন বাংলাদেশে মূল্যস্ফীতি চরম আকার ধারণ করেছে। মে মাসে দেশে মূল্যস্ফীতির হার ছিল নয় দশমিক ৯৪ শতাংশ (৯.৯৪%)। সেদিক থেকে বিবেচনা করলে আগামী জুলাই হতে ব্যাংক ঋণের নতুন সুদের হার কার্যকর হলে মূল্যস্ফিতি কিছুটা হলেও নিয়ন্ত্রণে আসতে পারে। সাধারণত বাজারে টাকার সরবরাহ বাড়িয়ে বা কমিয়ে বাজারে টাকার যোগান নিয়ন্ত্রণ করে থাকে বাংলাদেশ ব্যাংক।কিন্তু এখন থেকে এরকম মুদ্রা সরবরাহ নীতির বদলে সুদহার ভিত্তিক নীতি নেয়া হবে। অর্থাৎ সুদের হার বাড়িয়ে বা কমিয়ে বাজারে মুদ্রার যোগান নিয়ন্ত্রণ করা হবে।

ব্যাংক হতে ব্যাংকের ঋণের ক্ষেত্রে কতটা বাড়লো? যখন ৯% সুদ সীমা দেওয়া হয়েছিল, তখন ব্যাংকগুলোর সুদ ১৮ শতাংশে উঠেছিল। তখন বিদেশি ঋণের সুদহার ছিল ২ শতাংশ। এখন বিদেশি ঋণের সুদ ৯-১০ শতাংশ। আবার টাকার অবমূল্যায়নের কারণে তার খরচ আরও বেশি হয়ে যাচ্ছে।’ মুদ্রানীতিতে মূল্যস্ফীতি নিয়ন্ত্রণে রেপো হার ৫০ শতাংশীয় পয়েন্ট বাড়ানো হয়েছে। এতে রেপো হার ৬ শতাংশ থেকে বৃদ্ধি পেয়ে ৬ দশমিক ৫০ শতাংশে উঠবে। সেই সঙ্গে রিভার্স রেপো হার ২৫ শতাংশীয় পয়েন্ট বাড়ানো হয়েছে ৪ দশমিক ২৫ থেকে বৃদ্ধি পেয়ে তা হবে ৪ দশমিক ৫০ শতাংশ।

নতুন মুদ্রানীতি ১লা জুলাই ২০২৩ হতে কার্যকর হইবে / বাংলাদেশে নতুন মুদ্রানীতি ২০২৩ ঘোষনা করা হয়েছে

বাংলাদেশের বাজারে আবার সুদের হার উর্ধ্বসীমায় উঠে যাবে। এক্ষেত্রে ব্যাংকগুলো বাজার ভিত্তিক সুদের হার অনুসরণ করবে যা কেন্দ্রীয় ব্যাংক সময় সময় নির্দেশনা জারি করবে।

নতুন মুদ্রানীতি ঘোষণা ২০২৩ । এখন থেকে বাজার ভিত্তিক ঋণের সুদের হার কার্যকর থাকবে

Caption: Check source of information

ব্যাংক ঋণ এবং রেপো বা কল মানিতে সুদের হারের পরিবর্তন । বাজার ভিত্তিক সুদের হার মূল্যস্ফিতি নিয়ন্ত্রণে ভূমিকা রাখবে

  1. ব্যাংকঋণের ৯ শতাংশ সীমা তুলে দিয়ে সুদ গণনার নতুন কাঠামো ঘোষণা করেছে বাংলাদেশ ব্যাংক।
  2. একই সঙ্গে আর্থিক প্রতিষ্ঠানগুলোর সুদহারের সীমাও তুলে দেওয়া হয়েছে।
  3. নতুন নিয়মে ব্যাংকঋণের সুদহার হবে সর্বোচ্চ ১০ দশমিক ১২ শতাংশ।
  4. আর্থিক প্রতিষ্ঠানগুলোর ঋণের সুদহার হবে সর্বোচ্চ ১২ দশমিক ১২ শতাংশ।
  5. এসএমই ও ভোক্তাঋণের তদারকি খরচের জন্য ব্যাংক ও আর্থিক প্রতিষ্ঠানগুলো আরও ১ শতাংশ বেশি সুদ আরোপ করতে পারবে।

ভোক্তা ঋণে সুদের হার কত হবে?

১১.১২ শতাংশ হতে পারে। ব্যাংক ভেদে সুদের হারের তারতম্য হবে। বানিজ্যিক ব্যাংকগুলোতে ১১.১২ শতাংশ হতে ১২ শতাংশ পর্যন্ত হিসাবে ঋণদান করতে পারে। যদিও কেন্দ্রীয় ব্যাংক নিয়ন্ত্রণ করবে এবং বাজার ভিত্তিক রেট ঘোষণা করবে। নগদ অর্থের ঘাটতি তৈরি হলে ব্যাংকগুলো কেন্দ্রীয় ব্যাংক থেকে অথবা অন্য ব্যাংক থেকে সুদে টাকা ধার করলে তাকে কলমানি বলা হয়। সেই কলমানির রেট হবে রেপো রেটের কম বেশি দুই শতাংশ। রেপো রেট আগের তুলনায় কিছুটা বাড়িয়ে ছয় শতাংশ করা হয়েছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *