প্রাইজবন্ডের পুরস্কার ক্রয় ও ড্র হওয়ার পর অনলাইনে চেক করার নিয়ম ২০২২

সমাজের মধ্যবিত্ত মানুষের জন্য একটি বিনিয়োগ মাধ্যম হচ্ছে প্রাইজবন্ড। প্রথম বাংলাদেশ ব্যাংক প্রাইজবন্ড চালু করে ১৯৪৭ সালে। প্রাইজবন্ড কিভাবে কিনবেন এবং কিভাবে ভাঙ্গাবেন সেটিই আজ আলোচনা করা হবে। ইসলামী ব্যাংক হতে প্রাইজবন্ড কিনতে পারবেন না। অন্যান্য সকল ব্যাংক ও জেলা সঞ্চয় অফিস হতে ১০০ টাকার প্রাইজবন্ড কিনতে পারবেন। ১০ টাকা ও ৫০ মূল্যমানের প্রাইজবন্ডও ছিল বর্তমান ১০০ টাকার প্রাইজবন্ড রয়েছে।

বছরে কয়বার প্রাইজবন্ড ড্র হয়?

বছরে ৪ বার প্রাইজবন্ড ড্র হয়ে থাকে। প্রতি তিনমাস অন্তর অন্তর ড্র অনুষ্ঠিত হয়। ১০০ টাকার প্রাইজবন্ড ৩১ জানুয়ারি, ৩০ শে এপ্রিল, ৩১ জুলাই এবং ৩১ অক্টোবর প্রাইজ বন্ড ড্র হয়ে থাকে। সঞ্চয় করতে হলে প্রাইজবন্ডে করুন। ১০০ টাকার প্রাইজবন্ড ক্রয় করে ৬ লক্ষ টাকা পর্যন্ত পুরস্কার পেতে পারেন। বাংলাদেশ ব্যাংকের সকল শাখাসহ যে কোন ব্যাংক হতে কিনতে পারবেন শুধুমাত্র ইসলামী শরিয়া ভিত্তিক ব্যাংক ছাড়া।

প্রাইজবন্ডে ১ম পুরস্কার ৬ লক্ষ টাকা

প্রাইজবন্ডে ১ম পুরস্কার ৬ লক্ষ টাকা

কি কি কাগজপত্র লাগে প্রাইজবন্ড ক্রয় করতে হলে?

কোন এনআইডি বা প্রুফ এর প্রয়োজন হয়না প্রাইজবন্ড কিনতে। বাংলাদেশের ৪৭ সিরিজের প্রাইজবন্ড আপনি শুধু টাকা থাকলে যে কোন ব্যাংক হতে কিনতে পারবেন। দ্বিতীয় পুরস্কার ৩ লক্ষ ২৫ হাজার টাকা। পঞ্চম পুরস্কার ১০ হাজার টাকার ৪০টি। প্রাইজবন্ড জুয়া কিনা। প্রাইজবন্ডে আপনি লাভবান হবেন এতে জুয়ার মত নি:সম্বল হওয়ার সুযোগ নেই। প্রাইজ বন্ড অবৈধ বা শরিয়া বিরোধী নয়। প্রাইজ বন্ডের ড্রয়ের ফলাফল বিজয়ীর মাত্র ৫০% পুরস্কার গ্রহণ করেছেন বাকী ৫০% পুরস্কার গ্রহণের জন্য আবেদনই করেনি। এখানে একটি ব্যাখ্যা রয়েছে যে, অনেকে ফলাফল জানেই না, পত্রিকা বা অনলাইনে ঘোষণা দিলেও গ্রাহক জানতে পারে না বলে দাবী করে না।

প্রাইজবন্ড সব একটা একটা করে মিলিয়ে দেখা খুবই কঠিন ব্যাপার। প্রাইজবন্ড যার কাছে থাকবে তা সেই বন্ডে মালিক এটি কিনতে যেমন কোন প্রমানপত্র লাগে না ঠিক এটির মালিকানা দাবিও কেউ করতে পারবেন না।

অনলাইনে প্রাইজবন্ড প্রাপ্যতা জেতায় চেক করবেন যেভাবে?

আপনি বাংলাদেশ ব্যাংকের ওয়েবসাইট হতে প্রাইজবন্ডের প্রাপ্যতা চেক করতে পারেন। ড্র হলেই আপনি আপনার প্রাইজবন্ড নম্বর ব্যবহার করে প্রাইজবন্ড চেক করতে পারেন। পুরস্কার পেয়েছেন কিনা তা চেক করার লিংক: bb.org.bd/en/index.php/Investfacility/prizebond

প্রাইজ বন্ড চেক

এছাড়াও বিভিন্ন ওয়েবসাইট রয়েছে যেখানে ইনপুট দিয়ে রাখলে ওয়েবসাইট আপনাকে ম্যাসেজ করে জানাবে যে, আপনি পুরস্কার পেয়েছেন কিনা। এসব ভেন্ডর থেকে আপনি প্রাইজন্ড কিনতে ও অটো চেক করতে পারবেন। https://prachurja.com অথবা https://prizebond-checker.com লিংকে গিয়ে সাবসক্রিপশনে গিয়ে ১০০ বা ৫০০ টাকা চার্জ দিয়ে আপনি এসিস্ট্যান্ড নিয়োগ করতে পারেন যার ফলে তারা ড্র হলেও তা চেক করে আপনাকে ম্যাসেজের মাধ্যমে জানিয়ে দিবে।

প্রাইজবন্ড সম্পকিত তথ্য

বাংলাদেশ প্রাইজ বন্ড

বাংলাদেশ প্রাইজবন্ডের ‘ড্র’ -এর ফলাফল অনুসন্ধান করার নিয়ম ২০২২

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *