ব্যাংক একাউন্ট মেইনটেইন চার্জ ২০২৩ । ব্যাংক একাউন্ট সচল রাখতে যে চার্জগুলো কাটবেই

একাউন্ট থাকলেই যে চার্জগুলো আপনাকে দিতে হবে – ব্যাংক একাউন্ট মেইনটেইন চার্জ ও সার্ভিস চার্জ–ব্যাংক একাউন্ট মেইনটেইন চার্জ ২০২৩

ব্যাংক একাউন্ট মেইনটেইন চার্জ কি? – অতীতে ম্যানুয়াল হিসাব বুকের মাধ্যমে ব্যাংক হিসাব রাখা হত। প্রতি বছর ব্যাংক হিসাব স্থানান্তর ও লেখালেখি করে ব্যাংক একাউন্ট তথ্য এক লেজার থেকে অন্য লেজারে নিতে হত। তবে ব্যাংক সেজন্য বাৎসরিক চার্জ ধার্য করতো। ব্যাংকের সেই আদিম পদ্ধতি বাতিল হলেও ব্যাংক চার্জ বাতিল হয়নি। অনলাইনে এখন প্রতি বছর অটো হিসাব ফরওয়ার্ড ও সংরক্ষণ থাকলেও ব্যাংক তাদের আয় হিসেবে সেই পুরনো পদ্ধতিতে ৩০০ টাকা চার্জ নিচ্ছে এবং ৪৫ টাকা ১৫% হারে ভ্যাটও কেটে নিচ্ছে।

ব্যাংক ছাড়াও বিভিন্ন ডিজিটাল একাউন্ট যেমন অনলাইন ওয়ালেট, মোবাইল ব্যাংকিং এসব হিসাবে কোন চার্জ দিতে হয় না কিন্তু ব্যাংকে তথ্য অটো আপডেট হলেও সেটির জন্য গ্রাহকের কাছ থেকে বড় অংকের চার্জ নেয়া হয়। এটি ব্যাংকের পরিচালন আয় এছাড়া ব্যাংকে অনলাইন লেনদেনের ক্ষেত্রেও গ্রাহককে চার্জ গুনতে হয়। ১৮ টাকা থেকে ১৭২৫ টাকা পর্যন্ত কমিশন ও ভ্যাট গুণতে হয়।

মোটর উপর যোগ হয়েছে মোবাইল মেসেজ চার্জ ট্রানজেশন হলেও আমাদের মোবাইলে মোবাইল কোম্পানির মাধ্যমে মেসেজ পাঠানো হয় এজন্যও চার্জ গুনতে হয়। মোট কথা ব্যাংক যে তার পরিচালন আয় হতে কোন অর্থই গ্রাহকের জন্য ব্যয় করবে না সেটি ষ্পষ্ট তাই বার্ষিক মেসেজ চার্জের জন্য ১৫০ টাকা কর্তন করা হয় এবং ১৫০ টাকার উপর ১৫% ভ্যাট হিসেবে ২২.৫ টাকা কর্তন করা হয়।

আসলে কি কি চার্জ ব্যাংক হতে কর্তন করা হয়?/ ব্যাংক কি সার্ভিস চার্জ বা যে কোন চার্জ কর্তন করলেই মেসেজ দেয়?

ব্যাংক যে কোন সেবার জন্যই চার্জ করে থাকে এ চার্জ লেনদেনের ধরণ ও পরিমাণের উপর ভিন্ন ভিন্ন হয়ে থাকে।

ব্যাংক চার্জ ২০২৩ । এটিকে যে কারণে অপরিচালন ব্যয় বলা যাবে না

ব্যাংক চার্জ ২০২৩ । কি কি চার্জ গুণতে হয়

  1. হিসাব রক্ষনের ফি-৩০০ টাকা হতে ৫০০ টাকা চার্জ করা হয়+১৫% ভ্যাট প্রযোজ্য।
  2. ইন্টারনেট ব্যাংকিং চার্জ-এক্ষেত্রে এখনও বিভিন্ন সেবা ফ্রি রয়েছে। তবে কিছু ক্ষেত্রে চার্জ হয়।
  3. এটিএম লেনদেন চার্জ-১১.৫০ টাকা হতে ৪৫ টাকা পর্যন্ত প্রতি লেনদেনে চার্জ করা হয়।
  4. টেলিফোন/মোবাইল ব্যাংকিং ফি-মেসেজ সার্ভিস চালু থাকলেই ১৫০ টাকা+১৫% ভ্যাট প্রযোজ্য।
  5. ব্রাঞ্চ উইথড্রয়াল ফি-আপনি অন্য ব্রাঞ্চে টাকা লেনদেন করলেই ১৮ টাকা হতে ১৭২৫ টাকা পর্যন্ত চার্জ দিতে হয় ভ্যাট সহ।
  6. চেক উত্তোলন ফি-চেক বই উত্তোলনের জন্য প্রতি চেকের পাতা ৩ টাকা হিসেবে চার্জ হয়।
  7. ক্রেডিট লিমিট ক্রস ফি-ক্রেডিট লিমিট ক্রস করলেও চার্জ গুণতে হয়।
  8. জমাতিরিক্ত উত্তোলনের ফি-কারেন্ট হিসাবে ব্যাংক জমার অতিরিক্ত উত্তোলনের জন্যও চার্জ গুণতে হয়।
  9. লভ্যাংশ আদায়ের চার্জ-লভ্যাংশ পেলেই তার উপর ১৫% ট্যাক্স গুণতে হবে।
  10. এটিএম কার্ড থাকলেই ৫০০ টাকা চার্জ করা হবে১৫% ভ্যাট প্রযোজ্য।

অ্যাপ ব্যবহারে কি চার্জ কাটে?

না। এখনও কাটা হচ্ছে না। বিভিন্ন ব্যাংক ফ্রি দিলেও এটির ব্যবহার বৃদ্ধি পেলেই চার্জ আরোপ করা হবে। একজন গ্রাহকের যদি ১০টি একাউন্ট থাকে তাকে প্রতি বছর প্রায় ১০ হাজার টাকার মত এক্সট্রা ফি গুণতে হবে তা ব্যাংক হিসাবে লেনদেন থাক বা না থাক। তাই ব্যাংক হিসাব সংখ্যা বৃদ্ধির ক্ষেত্রে মাথায় রাখবেন যে, যত বেশি একাউন্ট থাকবে তত বেশি অর্থ আপনার পকেট হতে গচ্ছা যাবে। তাই নতুন ব্যাংক হিসাব খোলার ক্ষেত্রে সতর্ক থাকুন। ৬ মাস অন্তর এবং বছর শেষে ব্যাংক স্টেটমেন্ট উঠিয়ে দেখে নিন মোট কত টাকা আপনার ব্যাংক হিসাব হতে চার্জ কর্তন করে হওয়া করে দেয়া হয়েছে।

One thought on “ব্যাংক একাউন্ট মেইনটেইন চার্জ ২০২৩ । ব্যাংক একাউন্ট সচল রাখতে যে চার্জগুলো কাটবেই

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *